বঙ্গবন্ধু কর্নারের বই নিয়ে জালিয়াতি তদন্তে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট

বঙ্গবন্ধু কর্নারের বই নিয়ে জালিয়াতি তদন্তে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট

বঙ্গবন্ধু কর্নারের বই নিয়ে জালিয়াতি তদন্তে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট

বঙ্গবন্ধুর নামের বইয়ের মেধাস্বত্ব চুরি ও গ্রন্থস্বত্ব জালিয়াতির ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবকে প্রধান করে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক (ডিজি) হাবিবুল্লাহ সিরাজী, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হককে এই তদন্ত করতে বলা হয়েছে। এক মাসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট আদালতে দাখিল করতে হবে।
বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হক সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিচন বেঞ্চ আজ এই নির্দেশ দেন। রিটকারী আইনজীবী ব্যারিষ্টার ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন সাংবাদিকদের এ কথা জানান। আদালতে রিটের পক্ষে তিনি নিজেই শুনানি করেন।
দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’-এর জন্য বই কেনায় ‘জালিয়াতি ও অনিয়মের’ ঘটনায়
বিচারবিভাগীয় অথবা স্বাধীন তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে ৩১ আগষ্ট এ রিটটি করা হয়।
ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন বাসস’কে জানান, দুটি প্রকাশনা সংস্থার নামে প্রায় ২০ কোটির বেশি টাকার বই সরবরাহ নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে রিটটি করা হয়।
রিটে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ‘জার্নি মাল্টিমিডিয়া লিমিটেড’ ও ‘স্বাধীকা পাবলিশার্স’ এবং সাংবাদিক নাজমুল হোসেনের স্ত্রী শারমীন সুলতানাসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী (রেসপনডেন্ট) করা হয়।
সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, ৬৫ হাজার ৭০০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ‘বঙ্গবন্ধু কর্নারে’ জন্য বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ৩৯টি বই কেনার অনুমতি দেয়া হয়। এজন্য বরাদ্দ দেয়া হয় ১৩০ কোটি টাকা। সেখান থেকে আপাতত ২৮ কোটি টাকায় আটটি বই কেনা হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, এই বই সরবরাহের নামে ১৭ কোটি ৫৭ লাখ ৫৬ হাজার ৫০০ টাকা বরাদ্দ পায় প্রকাশনা সংস্থা জার্নি মাল্টিমিডিয়া লিমিটেড। আর স্বাধীকা পাবলিশার্স নামের প্রকাশনা সংস্থার নামে বরাদ্দ হয় ৩ কোটি ১৩ লাখ ৩৮ হাজার ৯০০ টাকা। এই দুটি প্রকাশনা সংস্থার সাথেই যুক্ত আছেন নাজমুল হোসেন নামের এক সাংবাদিক। গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, বই কেনা প্রকল্পের মোট ২৮ কোটি ৭৮ লাখ ১২ হাজার ২০০ টাকার মধ্যে ২০ কোটি ৭০ লাখ ৮৬ হাজার ৪০০ টাকাই জার্নি মাল্টিমিডিয়া লিমিটেড ও স্বাধীকা পাবলিশার্সের নামে বরাদ্দ হয়। যেখানে জার্নি মাল্টিমিডিয়ার নামে সরবরাহ করা হচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু মানেই স্বাধীনতা’ এবং বঙ্গবন্ধুর সমগ্র কারাজীবন নিয়ে ‘৩০৫৩ দিন’ নামের বই দুটি। আর স্বাধীকা পাবলিশার্স থেকে সরবরাহ করা হচ্ছে ‘অমর শেখ রাসেল’ বইটি।
‘বঙ্গবন্ধু মানেই স্বাধীনতা’ বইটি প্রথম প্রকাশ করেছিল মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। আর ‘৩০৫৩ দিন’ প্রকাশ করেছিল কারা অধিদপ্তর। সেই বই জার্নি মাল্টিমিডিয়ার নামে প্রকাশ করা হয়েছে। যেখানে ‘বঙ্গবন্ধু মানেই স্বাধীনতা’ বইয়ের সম্পাদক অমিতাভ দেউড়ী তাকে না জানিয়ে বইয়ের দ্বিতীয় ও তৃতীয় সংস্করণ প্রকাশ এবং বইয়ের ক্রেডিট লাইনে পরিবর্তন আনার অভিযোগ করেছেন। অন্যদিকে ‘অমর শেখ রাসেল’ বইটি স্বাধীকা পাবলিশার্স প্রথম প্রকাশ করলেও এর সম্পাদক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য নাসরীন আহমেদকে না জানিয়েই তা প্রকাশ এবং বঙ্গবন্ধু কর্নারে সরবরাহ করার অভিযোগ করেছেন। বাসস 

0/Post a Comment/Comments

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো