রাজস্ব আদায় কার্যক্রম জোরদারকরণে ডিএসসিসির কমিটি

রাজস্ব আদায় কার্যক্রম জোরদারকরণে ডিএসসিসির কমিটি

রাজস্ব আদায় কার্যক্রম জোরদারকরণে ডিএসসিসির কমিটি

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২০২০-২০২১ অর্থবছরের রাজস্ব আদায় কার্যক্রম জোরদারকরণে সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। ডিএসসিসি সচিব আকরামুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ কমিটি গঠন করা হয়।
ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে আহ্বায়ক এবং প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তাকে সদস্যসচিব করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন ডিএসসিসির সচিব, প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা, প্রধান অডিট কর্মকর্তা, আইন কর্মকর্তা ও সমাজকল্যাণ কর্মকর্তা।
কমিটির কার্যপরিধি সম্পর্কে বলা হয়েছে, নতুন খাত থেকে কী হারে কীভাবে রাজস্ব আদায় করা হবে তা নির্ধারণ করে সরকারের পূর্বানুমতির জন্য প্রবিধান প্রস্তুতকরণ এবং সে বিষয়ে কর্তৃপক্ষ বরাবর সুপারিশ পেশ করা।
এদিকে উন্নয়নকে গুরুত্ব দিয়ে গত অর্থবছরের চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি বাজেট বাড়িয়ে সম্প্রতি ২০২০-২০২১ অর্থবছরের জন্য ছয় হাজার ১১৯ কোটি ৫৯ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। প্রতিষ্ঠার পর এটিই তাদের সর্বোচ্চ বাজেট।
জানা গেছে, উন্নত ঢাকা গড়তে এই বাজেটে উন্নয়ন ব্যয় ক্রমান্বয়ে বাড়বে বলে মনে করছে সংস্থাটি। একই সাথে রাজস্ব সংগ্রহ বাড়ানোরও সুনির্দিষ্ট কিছু লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ডিএসসিসি এবার নতুন ১৯টি সেক্টর-খাত নির্ধারণ করেছে এবং সেসব খাত থেকে প্রথমবারের মতো রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা প্রাক্কলন করা হয়েছে।
২০২০-২১ অর্থবছরে ১৯টি খাতে নতুনভাবে কর ধার্য করতে যাচ্ছে ডিএসসিসি। এগুলোর মধ্যে রয়েছে- টিউটোরিয়াল স্কুল, কোচিং সেন্টার নিবন্ধীকরণ ফি, প্রাইভেট হাসপাতাল, প্যারামেডিকেল ইনস্টিটিউট, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার নিবন্ধীকরণ ফি, করপোরেশন এলাকায় অবস্থিত হোটেলের ওপর নগরকর, বর্জ্যব্যবস্থাপনা কাজে নিযুক্ত প্রাইমারি কালেকশন সার্ভিস প্রোভাইডার নিবন্ধন ও বার্ষিক ফি, ইউটিলিটি সার্ভিস প্রদানে রাস্তা ব্যবহারের ফি, রিকশা লাইসেন্স ফি, ইমারত নির্মাণ ও পুনর্নির্মাণের জন্য আবেদনের ওপর কর, নগরীতে ভোগ, ব্যবহার বা বিক্রয়ের জন্য পণ্য আমদানির ওপর কর; নগর থেকে পণ্য রফতানির ওপর কর, টোলজাতীয় কর, পেশা বা বৃত্তির ওপর কর, জনসেবামূলক কার্যসম্পাদনের ওপর কর, সরকার কর্তৃক আরোপিত করের ওপর কর, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ট্রেনিং সেন্টার প্রভৃতির ওপর কর; মেলা, কৃষিপ্রদর্শনী, শিল্পপ্রদর্শনী, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও অন্যান্য জনসমাবেশের ওপর কর; বিবাহ, তালাক, দত্তক গ্রহণ ও জিয়াফত বা ভোজের ওপর কর; পশুর ওপর কর, বাজারের ওপর ফি (ইজারা) এবং অন্যান্য খাত।জাগোনিউজ২৪ 

0/Post a Comment/Comments

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো