বিপিও শিল্পে তরুণদের জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ

বিপিও শিল্পে তরুণদের জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ

বিপিও শিল্পে তরুণদের জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কল সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং (বাক্কো) ও আইসিটি অধিদফতরের যৌথ উদ্যোগে আউটসোর্সিং খাতে তরুণদের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিতে প্রথমবারে মতো অনলাইন প্ল্যাটফরমে ‘Online BPO Events 2020’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ক্যারিয়ার কাউন্সেলিং সেশনের আয়োজন করেছে।
বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারী নোভেল করোনাভাইরাসের প্রভাবে চাকরির বাজারে যে অস্থিরতা বিরাজ করছে তা থেকে পরিত্রাণের জন্য বিপিও শিল্পের সম্ভাবনাগুলো তরুণদের মাঝে তুলে ধরতেই এ আয়োজন।
অনুষ্ঠানের প্রথম অংশে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সূচনা করেন প্রধান অতিথি তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। তিনি বলেন, ‘দেশের প্রত্যেকটি সেক্টরকে প্রযুক্তিনির্ভর করতে হলে আউটসোর্সিংয়ের ব্যবহার ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই। আর তাই, এ শিল্পে দক্ষ মানবশক্তি তৈরিতে আইসিটি ডিভিশন থেকে সবরকমের ট্রেইনিং সুবিধা দেয়া হবে’।
‘আইটি শিল্পে ২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় এবং ৪র্থ শিল্পবিপ্লবের স্বয়ংক্রিয় যুগে প্রবেশ করার কারণে সবাইকে কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করার পরও প্রতিনিয়ত জ্ঞান অর্জন করতে হবে। কেননা, এখন লাইফ লং লার্নিং ছাড়া টিকে থাকা কঠিন হয়ে পড়বে’ বলে জানিয়েছেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। 
অনুষ্ঠানের পরবর্তী অংশে ছিল “BPO-The Career for the 21st Century” শীর্ষক সেমিনার। ওই সেমিনারে অতিথি হিসেবে আইসিটি ডিভিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এ ২১ শতকে তরুণদের যেসব তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক দক্ষতা প্রয়োজন, তা নিয়ে একটি তথ্যবহুল উপস্থাপনা তুলে ধরেন বাক্কো ডিরেক্টর রাশেদ নোমান।
অনুষ্ঠানের সবশেষ অংশে ছিল “Career Counselling Session”। প্রথমবারের মতো অনলাইনে এ ধরনের সেশনের মাধ্যমে দক্ষ তরুণদের চাকরির সুযোগ এবং এ বিষয়ক তথ্য প্রদান করা হয়, যেখানে ঢাকার এবং চট্টগ্রামের কয়েকটি বিপিও প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন এবং তাদের প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিগুলো সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য ও আবেদনের উপায় সম্পর্কে জানান।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সেমিনারটি মূলত চট্টগ্রামের তরুণদের কাছে এ শিল্পে ক্যারিয়ার গড়ে তোলার সুযোগ পৌঁছে দেয়ার উদ্দেশ্যে করা হলেও তা দেশের সব প্রান্তের সম্ভাবনাময় তরুণদের জন্য কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে। কেননা, শুধু ঢাকাকেন্দ্রিক না থেকে দেশের সব প্রান্তের প্রতিভাবান তরুণদের এ শিল্পে নিয়োজিত করতে পারলেই বিপিও শিল্পের সম্প্রসারণ সম্ভব হবে। এ পুরো আয়োজনে বিশেষ অতিথি ছিলেন এনএম জিয়াউল আলম পিএএ, সিনিয়র সচিব, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং এবিএম আরশাদ হোসেন, মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব), তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতর। বাক্কো সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ পুরো আয়োজনটির সভাপতিত্ব করেন।

0/Post a Comment/Comments

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো